ব্রেকিং নিউজ:

বৈশাখী উৎসবে বৈশাখী সাজ -১ম পর্ব

সবসময় ডেস্কঃ ২০১৬-০৪-১২ ১১:০০:২৬

আর মাত্র কয়েকটা দিন। দেখতে দেখতে বছর ঘুরে চলে এলো বাঙালির ঐতিহ্যবাহী আর সরূপে উজ্জ্বল উৎসব ‘পয়লা বৈশাখ’। পয়লা বৈশাখ নিয়ে শুধু এ দেশের মানুষই নয় বরং পুরো পৃথিবীর বাংলা ভাষাভাষী মানুষের আছে আলাদা এক উৎসব কেন্দ্রিক প্রস্তুতি। তাই আপনাদের জন্য আমরা এবার বৈশাখী সাজ-সজ্জা নিয়ে প্রস্তুত করেছি ধারাবাহিক প্রতিবেদন। আজ জেনে নিন 'বৈশাখী উৎসবে বৈশাখী সাজ' এর প্রথম পর্ব, পোশাক আর মেকাপের প্রস্তুতি টিপস।

পোশাকঃ

পয়লা বৈশাখ মানেই যে শুধু লাল সাদা পোশাক, সে ভাবনাটা এখন আর নেই। এখন ফ্যাশন সচেতনরা বেছে নিচ্ছেন লাল, সাদা, কমলা, নীল, হলুদ, বেগুনী ইত্যাদি রঙও। বয়স, পরিবেশ আর অভ্যাস মিলে বেছে নিন আপনার পোশাক।

তবে যেহেতু উৎসবটি একেবারে দেশীয় সংস্কৃতির তাই মেয়েদের জন্য শাড়ি, আর ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবীটাই বেশি মানানসই। বাচ্চা মেয়েদের পরাতে পারেন পাতলা সুতির শাড়ি বা সালওয়ার-কামিজ ও বাচ্চা ছেলেদের পাঞ্জাবি বা ফতুয়া।

পোশাকের রঙের প্রাধান্য যেটাই থাকুক না কেন, হাতে থাকা চাই রেশমি চুড়ি। গলায় আর কানে পরতে পারেন মাটির গয়না।

মেকআপ :

বৈশাখী সাজে মেকআপের জন্য বেছে নিতে পারেন হাল্কা বেইজের কিছু। তবে তা অবশ্যই স্বাভাবিক মানের হওয়া চাই।

প্রচণ্ড গরম আর রোদের তাপে মেকআপ নষ্ট হবার ভয় থাকে। তাই বেছে নিতে পারেন অয়েল ফ্রি বা ওয়াটার প্রুফ মেকআপ।

চোখের সাজঃ

চোখে লাগাতে পারেন হাল্কা আই শ্যাডো আর মাশকারা। এ ক্ষেত্রে কাজল, আই লাইনার বা মাশকারা অবশ্যই ওয়াটার প্রুফ হতে হবে।

যাদের কাজল ছড়িয়ে যায় তারা কাজল দেওয়ার পর তার ওপর হাল্কা একটু পাউডার দিয়ে নেবেন। তাতে আর কাজল ছড়ানোর ভয় থাকবে না।

ঠোঁটের সাজঃ

ঠোঁটে দিতে পারেন লাল কিংবা অন্য হালকা রঙের লিপস্টিক। তবে রঙটা যেন অবশ্যই আপনার পোশাকের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়। অপেক্ষাকৃত হালকা রঙই ভালো লাগে বেশি।

কপালের সাজঃ

কপালে ছোট বা বড়  লাল টিপই বেশি মানাবে। অন্ন রঙের টিপও ব্যাবহার করতে পারেন, সেক্ষেত্রে এখানেও পোশাকের রঙের সাথে সামঞ্জস্যের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। তবে, এক্ষেত্রে গাঢ়ো রঙ অত্যাবশ্যকীয়।

চুলের সাজঃ

বড় চুলঃ বৈশাখের সাজে বড় চুলে করতে পারেন খোঁপা বা বেণী। শাড়ি বা সালওয়ার কামিজ যাই পরুন না কেন, চুলে খোঁপা বা বেণী দুটোই ভালো মানায়। এ ক্ষেত্রে হাত খোঁপা করে চুলের দু পাশে বা পুরোটা জুড়ে গেঁথে নিতে পারেন দেশি ফুলের মালা।

মাঝারি বা ছোট চুলঃ মাঝারি বা ছোট হলে চুল হলে এখনই দিয়ে ফেলুন মানানসই কোনো হেয়ার কাট। উৎসবের দিন সেটাকে আয়রন করে একপাশে রেখে দিতে পারেন বা ছোট্ট কোনো ব্যান্ড দিয়ে হাল্কা হাতে একটু অগোছালো করে আঁটকে নিতে পারেন। তবে তাতেও ফুল থাকা চাই-ই চাই!

যেহেতু পয়লা বৈশাখ বছরে একবারই পাওয়া যায় তাই এর পূর্ণ প্রস্তুতি নিন। বৈশাখী সাজের পূর্ণ নির্দেশনা জানতে আমাদের সবগুলো প্রতিবেদন পড়ুন।

এখন থেকেই গুছিয়ে রাখুন সব আর সেদিনটিতে নিজস্ব স্টাইলে হয়ে উঠুন অনন্য। বৈশাখের পূর্ণ সাজের ধারনা নিতে আমাদের সবগুলো প্রতিবেদন পড়ুন।

শেয়ার করে নিজে যেটা জানলেন বন্ধুদের কেও তা জানতে দিন।

আরও জান্তেঃ রূপচর্চা ও স্বাস্থ্যকথা BeautificatioN & HealtH


এই বিভাগের আরও সংবাদ